অস্ত্র ও যুদ্ধে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার প্রয়োগ নয়!

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তির ব্যবহার আমরা বিভিন্ন দেশে ও বিভিন্ন ক্ষেত্রে দেখে আসছি। কিন্তু যেভাবে কল্যাণ বয়ে আনবে বলে আমরা সবাই আশার আলো দেখছি, তেমনটি নাও হতে পারে। বিশেষ করে অটোমেটিক মানববিহীন মারনাস্ত্র তৈরীতে এটি ব্যবহারের চেষ্টা চলছে। ইতিমধ্যেই আমেরিকা মানববিহীন হেলিকপ্টার ড্রোণ ব্যবহার করে বিভিন্ন দেশে সামরিক অভিযান চালিয়েছে। এই সমস্ত ড্রোণের নিয়ন্ত্রণ করেছে মানুষ, কিন্তু মানুষের পরিবর্তে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ব্যবহার নিয়ে পরীক্ষা নিরিক্ষা চলছে। তবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাকে যদি মানব হত্যার জন্য ব্যবহার করা হয়, তবে একসময় এটিই আমাদের মানবসমাজকে ধ্বংস করে দিতে পারে। এই ভয়ংকর ব্যবহারের বিরুদ্ধে ইত্যিমধ্যেই প্রযুক্তিবিদরা সোচ্চার হয়েছে। প্রযুক্তি জগতে বিশ্বের নেতারা জাতিসংঘের কাছে যুদ্ধ ও অস্ত্র তৈরীতে , কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ও রোবট প্রযুক্তি প্রয়োগের বিরুদ্ধে চিঠি লিখেছে।

 

বিস্তারিত চিঠিটি পড়ুন:

An Open Letter to the United Nations Convention on Certain Conventional Weapons

About Shamima

Check Also

মস্তিষ্ক ও পাসওয়ার্ড

যে পাসওয়ার্ড আপনাকে প্রায়শই চট্-জলদি ব্যবহার করতে হয়, হঠাৎ একদিন সেই পাসওয়ার্ড কম্পিউটার-কীবোর্ডে টাইপ না করে একই গতিতে পেন বা পেনসিল ব্যবহার করে লেখার চেষ্টা করুন। লক্ষ্য করবেন যে আপনি যথেষ্ট স্বচ্ছন্দ বোধ করছেন না। এক্ষেত্রে পাসওয়ার্ড-টি ভুল লিখে ফেলাও অস্বাভাবিক নয়। কিন্তু কেন এমন ঘটে ? মস্তিষ্ক কি আপনাকে পাসওয়ার্ড-টা কোথাও লিখতে বারণ করছে ? বিষয়টাকে মস্তিষ্কের নিষেধ হিসাবে দেখলে আপনার ভালোই হবে কারণ পাসওয়ার্ড ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ এক ব্যক্তিগত তথ্য যা শুধু মস্তিষ্কে রাখাই ভালো।

ফেসবুক কমেন্ট


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।