Home / সাক্ষাৎকার / সাক্ষাৎকার: অধ্যাপক কাজী খালিদ হাসান
সাক্ষাৎকার: অধ্যাপক কাজী খালিদ হাসান
অধ্যাপক কাজী খালিদ হাসান (মাঝখানে) এবং তার দুই সহযোগী [Photo credit: University of Calgary]

সাক্ষাৎকার: অধ্যাপক কাজী খালিদ হাসান

Dr. Quazi K. Hassan is a Professor of Earth Observation for the Environment in the Department of Geomatics Engineering and Centre for Environmental Engineering Research and Education at The University of Calgary, Canada. Please visit the following website https://www.ucalgary.ca/qhassan/ for learning details about him.

বিজ্ঞানী.অর্গ: বিজ্ঞানী.অর্গ এর পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা গ্রহণ করুন। আমাদেরকে সাক্ষাতকার দেবার জন্য ধন্যবাদ। প্রথমেই আপনার সম্বন্ধে আমাদের একটু বলুন।

অধ্যাপক কাজী খালিদ হাসান: বিজ্ঞানী.অর্গকে আমার আন্তরিক ধন্যবাদ। আমি ১৯৯৪ সালে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি, খুলনা থেকে তড়িৎ এবং ইলেকট্রনিক্স কৌশল বিদ্যায় বিএসসি সনদ অর্জন করি। এরপর ১৯৯৮ সালে University Putra Malaysia থেকে Remote Sensing-এ  এমএসসি এবং ২০০৮ সালে University of New Brunswick, Canada থেকে Remote Sensing এবং Ecological Modelling-এ  ডক্টরাল সনদ অর্জন করি। এরপর একই সালে University of Calgary, Canada-এর Geomatics Engineering বিভাগে এবং Environmental Engineering কেন্দ্রে সহকারী অধ্যাপক হিসাবে যোগদান করি।এরপর ২০১৪ সালে সহযোগী অধ্যাপক এবং ২০১৭ সালে পূর্ণ অধ্যাপক হিসাবে পদায়ন প্রাপ্ত হই। এযাবৎ অধ্যাপনাকালীন সময়ে (২০০৮-২০১৮), আমার অধীনে ১ জন পোস্ট-ডক্টরাল, ৫ জন পিএইচডি, এবং ৬ জন এমএসসি থিসিস ও গবেষণা সাফল্য-এর সাথে সমাপ্ত করেছে। বর্তমানে, আমার অধীনে  ৪ জন পিএইচডি গবেষক সনদ অর্জনে কর্মরত। আমার গবেষণার বিষয় হল Remote Sensing, Geographical Information System, এবং Modelling Technique-এর সমন্বয়ে প্রাকৃতিক দুর্যোগ এবং  প্রাকৃতিক সম্পদ ব্যবস্থাপনা। এছাড়া, আমি বর্তমানে Remote Sensing (MDPI) এবং Scientific Reports (Nature Publication Group) নামক দুইটি জার্নাল-এর এডিটোরিয়াল বোর্ড-এর সদস্য হিসাবে সেবাদান করছি।

বিজ্ঞানী.অর্গ: Geomatics Engineering বিষয়টি আমাদের অনেকের কাছে নতুন। এটি সম্বন্ধে আমদের একটু বলুন।

অধ্যাপক হাসান: Geomatics Engineering হল প্রকৌশল এবং তথ্য প্রযুক্তি বিদ্যার এমন একটি শাখা যেখানে স্থানিক তথ্য (spatial data)  সংগ্রহ, বিশ্লেষণ, এবং এর ব্যবস্থাপনা বিষয়ে বিস্তারিত শিক্ষা প্রদান করা হয়। এ শাখার প্রধান বিষয় গুলো হল: ভূমি জরিপ, remote  sensing, geographic information system, global positioning system (GPS), photogrammetry, এবং পৃথিবীর মানচিত্র প্রস্তুত করার যেকোনো ধরনের প্রযুক্তি।

বিজ্ঞানী.অর্গ: কৃষিক্ষেত্রে remote sensing-এর ব্যবহার নিয়ে আপনি কিছু কাজ করছেন। একটু কি বিস্তারিত বলবেন?

অধ্যাপক হাসান: হ্যা,আমি সাম্প্রতিক সময়ে remote sensing প্রযুক্তি কৃষি ক্ষেত্রে ব্যবহার করেছি। এ ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য উদাহরণ হল:

  • সমগ্র বাংলাদেশের বোরো চাষের জমির আয়তন পরিমাপ করা,এবং এর উৎপাদন-সংক্ৰান্ত পূর্বাভাস অন্তত ৬ থেকে ৮ সপ্তাহ আগে প্রদান করা যাতে করে সরকার খাদ্য আমদানীর ব্যাপারে আগাম সিদ্ধান্ত নিতে পারে যদি ঘাটতি দেখার সম্ভাবনা থাকে;
  • ২০১৭ সালের বাংলাদেশের উত্তর-পূর্ব অঞ্চলে আকস্মিক বন্যার কারণে বোরো ধানের ক্ষয়ক্ষতি নিরুপন করা;
  • ২০০০ সালের বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিম অঞ্চলে আকস্মিক বন্যার কারণে আমন ধানের ক্ষয়ক্ষতি নিরুপন করা; এবং
  • নতুন খরা পর্যবেক্ষণ পদ্ধতি (drought monitoring system) উদ্ভাবন এবং Jordan-এর কৃষি ক্ষেত্রের উপর প্রয়োগ করা।

উপরের অধিকাংশ কাজই বাংলাদেশের খাদ্য নিরাপত্তা বিধানের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে আমি মনে করি। এ ছাড়াও আমার গবেষণা বাংলাদেশ-এর বন্যা ব্যবস্থাপনার কাজেও ব্যবহার করা যেতে পারে।

বিজ্ঞানী.অর্গ: বর্তমানে কি নিয়ে কাজ করছেন? ভবিষ্যতে কি নিয়ে কাজ করতে চান?

অধ্যাপক ক খ হাসান: আমি বর্তমানে নীচে উল্লেখিত প্রকল্পগুলোতে কাজ করছি, যেমন:

  • Remote sensing-এর সাহায্যে Canada-তে বন্য আগুন ঘটবার সম্ভাবনা বা ঝুঁকি নিরূপণ করে পূর্বাভাস প্রদান করা। এখানে বলা ভালো যে, Canada-র ৪০ শতাংশেরও বেশী ভূমি বনাঞ্চল দ্বারা আবৃত যেখানে প্রতি বছরে বিপুল সংখ্যক বন্য আগুন ঘটে এবং প্রচুর ক্ষয়ক্ষতি সাধন করে।
  • Remote sensing-এর মাধ্যমে ঐতিহাসিক ভূমি ব্যবহার-এর বিশ্লেষণ করা যেখানে পৃথিবীর অন্যতম বড় তেল ও গ্যাস সম্পদের মজুদ রয়েছে যা Athabasca Oil Sands Region নামে পরিচিত।
  • Canada-র Alberta Province-এর জন্য আবহাওয়া সম্পর্কিত ঐতিহাসিক স্থানিক তথ্যভাণ্ডার (spatial database) গড়ে তোলা এবং এর সঠিক মান নিয়ন্ত্রণ করা। আপনারা হয়তো জানেন যে, আবহাওয়া ও জলবায়ু সম্পর্কিত জ্ঞান আমাদেরকে পৃথিবীর বুকে টিকে থাকবার কৌশল তৈরিতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

 

এছাড়া, ভবিষ্যতে আমি দুটি বিষয়ে কাজ করতে চাই।একটি হল Remote sensing-এর মাধ্যমে জলবায়ু পরিবর্তন এবং এর জন্য টেকসই প্রশমন প্রযুক্তি তৈরি করা। অপরটি হল Remote sensing-এর সাহায্যে প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও সম্পদ ব্যবস্থাপনার জন্য কার্যকরী পদ্ধতি (operational system) তৈরি করা। 

 

বিজ্ঞানী.অর্গ: University of Calgary সম্বন্ধে আমাদের বলুন। বাংলাদেশিরা কি আপনার বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চশিক্ষার জন্য ভর্তি হতে পারে? তাদের জন্য কোন তথ্য কি দিতে পারবেন?

অধ্যাপক ক খ হাসান: University of Calgary, Canada-র একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্তমানে ৩০০০০+ ছাত্রছাত্রী, ১৮০০+ অধ্যাপক, এবং ১৪টি ফ্যাকাল্টি/স্কুল রয়েছে।এই ফ্যাকাল্টিগুলো হল:

  1. Cumming School of Medicine; https://cumming.ucalgary.ca
  2. Faculty of Arts; https://arts.ucalgary.ca
  3. Faculty of Environmental Design; https://evds.ucalgary.ca
  4. Faculty of Graduate Studies; https://grad.ucalgary.ca
  5. Haskayne School of Business; https://haskayne.ucalgary.ca
  6. Faculty of Kinesiology; https://www.ucalgary.ca/knes/
  7. Faculty of Law; https://law.ucalgary.ca
  8. Faculty of Nursing; https://nursing.ucalgary.ca
  9. Faculty of Nursing (Qatar); http://www.ucalgary.edu.qa
  10. Schulich School of Engineering; https://schulich.ucalgary.ca
  11. Faculty of Science; https://science.ucalgary.ca
  12. Faculty of Social Work; https://fsw.ucalgary.ca
  13. Faculty of Veterinary Medicine; https://vet.ucalgary.ca
  14. Werklund School of Education; https://werklund.ucalgary.ca

 

বাংলাদেশিরা অবশ্যই এই বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চশিক্ষার জন্য ভর্তি হতে পারে।এর জন্য আমি আপনাদেরকে অনুরোধ করবো যে ফ্যাকাল্টি-তে আপনি আগ্রহী, সেটার এবং Faculty of Graduate Studies-এর ওয়েবসাইট লিংক অনুসরণ করুন।

বিজ্ঞানী.অর্গ: তরুণ শিক্ষার্থী যারা বিজ্ঞানে কাজ করতে চায় তাদের জন্য আপনার কোন উপদেশ বা বক্তব্য কি?

অধ্যাপক ক খ হাসান: হা হা হা….. আমি নিজেই সর্বদা তরুণ শিক্ষার্থী হিসাবে থাকতে চাই! কারণ তরুণরা সর্বদাই প্রগতিশীল এবং নতুন কিছুতে তারাই অগ্রগামী। বাংলাদেশের তরুণ শিক্ষার্থীদেরকে শুধুমাত্র একটি কথাই বলব যে তারা একে অপরকে নকল না করে যেন নিজ কাজে স্বকীয়তা বজায় রাখে,যদিও আমাদের (বাংলাদেশের) উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে এ ধরণের অনুশীলন খুবই সীমিত।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পর্কে আরো নতুন নতুন সংবাদ জানতে সাবস্ক্রাইব করুন।

About নিউজডেস্ক

Check Also

সাক্ষাৎকারঃ প্রফেসর মোঃ মাহবুব আলম

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পর্কে আরো নতুন নতুন সংবাদ জানতে সাবস্ক্রাইব করুন। সংশ্লিষ্ট লেখা:সাক্ষাৎকারঃ ড. মোহাম্মদ …

ফেসবুক কমেন্ট


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।