Home / বিজ্ঞান বিষয়ক খবর / চাঁদে অভিযান।

চাঁদে অভিযান।

বায়ুস্তরের সর্বোচ্চ পর্যায়ে অর্থ্যা প্রায় 250 মাইল উচ্চতায় পৌছানোর পর চঁন্দ্রগামী রকেটকে প্রতি সেকেন্ডে 36 হাজার 5 শো ফুট (প্রায় 7 মাইল) বেগে চলতে হবে।কিন্তু 250 মাইল উপরে উঠে এই গতিবেগ পাওয়ার সংগে সংগেই তার জ্জালানী ফুরিয়ে যাবে।অবশ্য রকেট তখন ও উপরে উঠতে থাকবে না,কারন 250 মাইল উপরে ও পৄথিবীর মাধ্যাকর্ষন যথেস্ট প্রবল।এই শক্তি রকেটকে প্রতি সেকেন্ডে 29 ফুট হারে পিছনে টেনে আনবে,ফলে জ্জালানী ফুরিয়ে যাওয়ার এক সেকেন্ড পর রকেটের গতি হবে সেকেন্ড প্রতি 36,471 ফুট।দুই সেকেন্ড পর গতি হবে সেকেন্ড প্রতি 36,442 ফুট এবং তিন সেকেন্ড পর গতি হবে সেকেন্ড প্রতি মাত্র 36,413 ফুট।

অর্থ্যৎ প্রতি সেকেন্ডেই রকেটের গতি ক্রমবর্ধমান হারে হ্রাস পাবে।যতই সময় কাটবে রকেট ও পৄথিবীর মধ্যবর্তী দূরত্ত ও বাড়তে থাকবে।এবং পৄথিবীর মাধ্যাকর্ষন শক্তি ততোই দূর্বল হয়ে পড়বে।3 লক্ষ সেকেন্ড অর্থাৎ প্রায় সাড়ে 83 ঘন্টা পর রকেটের গতি কমে এসে সেকেন্ড প্রতি মাত্র 12/13 ফুটে এসে দাড়াবে।কিন্তু তখন ও রকেট থেকে চাঁদের দূরত্ত থাকবে 23 হাজার 6 শো মাইল।

এই দূরত্ত পৄথিবী চাঁদের মোট দূরত্তের দশ ভাগের প্রায় নয় ভাগ এবং এই দূরত্তের একটু বিশেষ তাৎপর্য আছে।এই স্থানটিতে পৄথিবী ও চাঁদের মাধ্যাকর্ষন শক্তি সমান শক্তিশালী।অথবা বলা যেতে পারে সমান দূর্বল। এই সীমারেখার কয়েকফুট এদিক অথবা ওদিকে,একটি অথবা অপরটির শক্তি প্রবল।অতএব রকেটের যদি কোনক্রমে এই সীমারেখা পার হওয়ার মতো শক্তি ও যদি অবশিস্ট থাকে,তাহলে রকেট চাঁদের মাধ্যাকর্ষন শক্তির এলাকায় গিয়ে পড়তে পারবে।

চাঁদের মাধ্যাকর্ষন শক্তি সম্ভবত অপেক্ষাকৄত দূ্র্বল কিন্তু এই শক্তি যে আছে সে বিষয়ে কোন সন্দেহ নেই।অতএব এই কারনে রকেট চাঁদের দিকে পড়তে শুরু করবে।এবং সীমারেখা পার হওয়ার ঠিক 50 হাজার সেকেন্ড পর চাঁদের উপর গিয়ে পতিত হবে।পৄথিবী থেকে চাঁদ পর্যন্ত এই পথ অতিক্রম করতে রকেটের 97 ঘন্টা কয়েক মিনিট অর্থাৎ 4 দিন 1 ঘন্টা কয়েক মিনিট সময় লাগবে।অনেকে বলে থাকেন যে মাত্র 10 ঘন্টাতেই রকেট চাঁদে পৌছাতে পারে,তবে তা আসল রকেট নয় কল্পনার রকেট।

এই 10 ঘন্টার হিসাবের একটু ইতিহাস আছে।পৄথিবীর কেন্দ্রস্থল থেকে চাঁদের কেন্দ্রস্থলের গড় দূরত্ত 2 লক্ষ 39 হাজার মাইল।অনেক সময় এই দূরত্ত কমে 2 লক্ষ 29 হাজার 4 শো 65 মাইল পর্যন্ত নেমে আসে।আবার অনেক সময় 2 লক্ষ 52 হাজার 7 শো 10 মাইল পর্যন্ত বেড়ে যায়।কেউ হয়তো এই বৄহত্তর (2,52710) সংখ্যাটিকে 7 মাইল (প্রতি সেকেন্ডের গতি) দিয়ে ভাগ করে দশ ঘন্টার উওর বে্র করেছে।কিন্তু রকেটের গতি যে সবসময় সেকেন্ড প্রতি 7 মাইল থাকে না তা হয়তো উপলদ্ধি করতে পারেনি।

 

About nebula morshed

Check Also

Airship Technology (উড়োজাহাজ প্রযুক্তি)

  Coauthored the Materials chapter by Shafiul Islam and Peter Bradley. 2nd Edition: Published from …

ফেসবুক কমেন্ট


  1. আপনার পোস্ট থেকে অনেক কিছু জানলাম|পোস্ট থেকে আরো জানলাম আপনার দুরদর্শী চিন্তা গুলো।এগুলো আমাদের অনেক প্রয়োজন।আপনাদের অনেক উপকারে আসতে পারে,অনেক সহজেই পেয়ে যেতে পারেন অনেক কিছু।
    Rent Apartment

  2. চাঁদের মাধ্যাকর্ষন শক্তি সম্ভবত অপেক্ষাকৄত দূ্র্বল কিন্তু এই শক্তি যে আছে সে বিষয়ে কোন সন্দেহ নেই।অতএব এই কারনে রকেট চাঁদের দিকে পড়তে শুরু করবে।এবং সীমারেখা পার হওয়ার ঠিক 50 হাজার সেকেন্ড পর চাঁদের উপর গিয়ে পতিত হবে। valo likse vai,, Tolet Dhaka

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।