ড. বাপন ফকরুদ্দিন: জলবায়ু “পরিবর্তন এবং আমাদের করণীয়

বাপন ফখরুদ্দিন, পিএইচডি – প্রযুক্তিবিদ-ডিআরআর এবং জলবায়ু স্থিতিস্থাপক। ড. ফখরুদ্দীন একজন বিশেষজ্ঞ জলবায়ু পরিবর্তন ঝুঁকি মূল্যায়নকারী, যা দুর্যোগ ঝুঁকিতে কাজ করার জন্য ১৯ বছরের বিশ্ব অভিজ্ঞতা রয়েছে এবং জলবায়ু স্থিতিস্থাপকতা প্রকল্প।এই অভিজ্ঞতাটি জলবায়ু পরিবর্তন অভিযোজন এবং প্রশমন কৌশল বিকাশের একটি বড় সুবিধা।তার দক্ষতার প্রধান ক্ষেত্রগুলি জলবায়ু এবং জলবিদ্যুৎ মূল্যায়ন,প্রারম্ভিক সতর্কতা এবং জরুরী প্রতিক্রিয়া,জলবায়ু পরিবর্তন অভিযোজন,এবং ক্ষমতা বৃদ্ধি ড. ফখরুদ্দিন প্রাথমিক সতর্কতার নকশা করেছিলেনএবং জরুরী প্রতিক্রিয়া প্রকল্পগুলি এশিয়া এবং প্রশান্ত মহাসাগরের ২৫ টিরও বেশি দেশ।ড. ফখরুদ্দিন বর্তমানে টেকনিক্যাল ডিরেক্টর হিসাবে কাজ করছেন- নিউজিল্যান্ডের টনকিন + টেলর ইন্টারন্যাশনালে দুর্যোগ ঝুঁকি এবং জলবায়ু স্থিতিস্থাপকতাএবং অকল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইউওএ) বিপর্যয় ঝুঁকি ব্যবস্থাপনায় স্নাতকোত্তর অধ্যয়নের জন্য একজন পরামর্শদাতা এবং সুপারভাইজার। তিনি ইউএনডিআরআরের গ্লোবাল রিস্ক অ্যাসেসমেন্ট ফ্রেমওয়ার্ক (জিআরএফ) এর একটি স্টিয়ারিং গ্রুপ। দুর্যোগ হ্রাস ডেটা এবং ঝুঁকিপূর্ণ ব্যাখ্যার জন্য কো-চেয়ারএবং অ্যাপ্লিকেশনগুলি (আরআইএ) আইএসসি/ ইউএনডিআরআর এর আইআরডিআর এর ওয়ার্কিং গ্রুপ। তিনি দুর্যোগ ঝুঁকি গবেষণার জন্য কো-চেয়ার কোডাটা টাস্ক গ্রুপ ফায়ার ডেটাও।

প্রশ্নঃ ১। আপনি একজন হাইড্রোলজিস্ট । হাইড্রোলজি, দুর্যোগ এবং জলবায়ু ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা বিশেষজ্ঞ হিসেবে আপনার রয়েছে 13 বছরের অভিজ্ঞতা । আপনার হাইড্রোলজিস্ট হওয়ার পেছনের গল্পটা কী ?

২। আপনার এই দীর্ঘ দিনের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে বলুন ।

৩। আপনি সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে গ্রেজুয়েশন কমপ্লিট করে পোস্ট গ্রেজুয়েশন করেছেন থাইল্যান্ডের এআইটি থেকে ওয়াটার ইঞ্জিনিয়ারিং । সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং থেকে ওয়াটার ইঞ্জিনিয়ারিং যাবার কারণটা কী ?

৪। থাইল্যান্ডের এআইটির শিক্ষার পরিবেশ কেমন ?

৫। আপনি কানাডার ইউনাইটেড নেশনস ইউনিভার্সিটি থেকে ইন্টিগ্রেটেড ওয়াটার রিসোর্স ম্যানেজমেন্টে পিজিডি করেছেন এবং ওয়াটার ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড ম্যানেজমেন্টে পিএইচডি করেছেন। সেখানকার অভিজ্ঞতা সম্পর্কে যদি বলতেন ?

৬। আপনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বন পরিষেবা (ইউএসএফএস) এর আইসিএসের একজন প্রত্যয়িত প্রশিক্ষক। সেখানকার কাজের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে যদি বলতেন ?

৭। একজন হাড্রোলজিস্ট হিসেবে আপনার রয়েছে ১৫ টিরও অধিক দেশে দুর্যোগ এবং জলবায়ু ঝুঁকি ব্যবস্থাপনায় কাজ করার অভিজ্ঞতা । সে সম্পর্কে যদি বলতেন ?

৮। বর্তমানে আপনি বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থার (WMO) কোস্টাল ইন্ডেনশন ফরকাস্টিং ডেমোনস্টেশন প্রজেক্ট ( CIDDP ) এর সিস্টেম ডেবেলপার হিসেবে কাজ করছেন ? এখানে কাজ করার অভিজ্ঞতা কেমন ?

৯। WMO তে যোগ দেওয়ার পূর্বে অনেক গুলো সংস্থাতে আপনি কাজ করেছেন , যেমন worked for University Corporation for Atmospheric Research (UCAR), USA, The United States Agency for International Development (USAID), Regional Integrated Multi-Hazard Early Warning System (RIMES), Asian Disaster Preparedness Center (ADPC), International Federation of Red Cross and Red Crescent Societies (IFRC), Sri Lanka, US Forest Service (USFS), OXFAM-Hong Kong, AECOM International, USA, CEGIS and FFWC of BWDB, Bangladesh.t এত গুলো সংস্থাতে আপনার কাজ করার সুযোগ হয়েছে । সেটা কিভাবে সম্ভব হলো ?

১০। আপনার ফিল্ড এখন কোন দিকে যাচ্ছে এবং আগামীতে কোন দিকে যাবে বলে মনে করেন?

১১। প্রাকৃতিক দূর্যোগ মোকাবেলায় স্বল্প ও দীর্ঘ মেয়াদি কী ধরণের কার্যকরি পদক্ষেপ নেওয়া উচিৎ বলে আপনার মনে হয় ?

১২। আপনার শৈশব কৈশর কেমন ছিল এবং কোথায় কেটেছে ?

১৩ । প্রাইমারী শিক্ষা থেকে শুরু করে উচ্চ শিক্ষা অর্জন করা পর্যন্ত যে সুবিশাল পরিক্রমা এই দীর্ঘ শিক্ষাজীবনের উত্তানপতনের গল্পটি যদি আমাদের শেয়ার করতেন ?

১৪ । আপনার জীবনে আপনার বাবা – মার অবদানকে কিভাবে মুল্যায়ন করছেন ?

১৫ । বেকারত্ব থেকে পরিত্রাণ পেতে তরুণদের কী করা প্রয়োজন বলে মনে করেন ?

১৬ । সাফল্য নাকি দক্ষতা কোনটার পিছনে ছুটা উচিৎ ?

১৭ । সফট স্কিল বলতে আপনি কী বুঝেন ? এটা অর্জন করতে হলে কী কী করা প্রয়োজন ?

১৮ । লিডারশীপ কী ? কেন দরকার ? কিভাবে অর্জন কারা যায় ?

১৯ । তরুণদের জন্য আপনার পরামর্শ কী ?

মি. বাপন ফখরুদ্দীনের সাক্ষাৎকার থেকে তাঁর শৈশব – কৈশরের স্মৃতিচারণ উঠে আসে। সেই বাড়ন্ত বয়স থেকেই তাঁর আলোকিত জীবন অধ্যায়ের সূচনা। তৎকালীন খুলনা ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ ( বর্তমান KUET) থেকে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং এ তিনি গ্রাজুয়েশন সম্পন্ন করেন। তবে ওয়াটার ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে তাঁর আগ্রহ থাকায় থাইল্যান্ডের এ আই টি থেকে ওয়াটার ইঞ্জিনিয়ারিং এ পোস্ট গ্রাজুয়েশন সম্পন্ন করেন। এরপর কানাডার ইউনাইটেড নেশনস ইউনিভার্সিটি থেকে ইন্টিগ্রেটেড ওয়াটার রিসোর্স ম্যানেজমেন্টে পিজিডি করেন এবং ওয়াটার ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড ম্যানেজমেন্টে পিএইচডি করেছেন। তাঁর সাক্ষাৎকার থেকে এসকল দেশের শিক্ষা- ব্যবস্থা এবং শিক্ষার পরিবেশ সম্পর্কে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানা যায়৷ কর্ম জীবনে এত সংখ্যক দেশী- বিদেশী এবং আন্তর্জাতিক সংস্থায় কাজ করার সুযোগ হওয়ার পেছনের গল্প এবং কর্ম অভিজ্ঞতার কথা বলতে গিয়ে তিনি তরুণ সমাজকে বিভিন্ন স্কিল ডেভেলপ করার পরামর্শ দেন। তাঁর জীবনের উত্থান পতনের দিকে কথা বলতে গিয়ে তিনি বিদেশে উচ্চশিক্ষার শুরুর দিকের কিছু ঘটনার প্রতি আলোকপাত করেন। কর্মের সুবাধে প্রায় ১৫ টি দেশে কাজ করার অভিজ্ঞতা তাঁর রয়েছে। সেই স্মৃতিচারণের সময় তিনি এক দেশের সাথে আরেক দেশের অবস্থার সাদৃশ্য ও বৈসাদৃশ্য নিয়ে কথা বলেন । সেই সাথে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা প্রসঙ্গে বাংলাদেশকে নিয়ে অনেক আশাব্যঞ্জক কথা বলেন এবং বাংলাদেশের বেকার সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পেতে করনীয় কিছু দিক তুলে ধরেন।এক কথায় বলা যায়, মি বাপন ফখরুদ্দীনের মতো সফল একজন মানুষের জীবনের অভিজ্ঞতালব্ধ জ্ঞানের চৌম্বক অংশ , যা তরুণ সমাজের চলমান জীবনের প্রতিবন্ধতা দূর করতে সাহস জোগাবে এবং সফলতার পথে ধাবিত করবে। জীবনমুখী এই আয়োজনটি তরুন সমাজকে স্বপ্ন দেখাবে এবং স্বপ্ন পুরণের পথ নির্দেশ করতে যথোপযোগী।

About ড. মশিউর রহমান

ড. মশিউর রহমান বিজ্ঞানী.অর্গ এর cofounder যার যাত্রা শুরু হয়েছিল ২০০৬ সনে। পেশাগত জীবনে কাজ করেছেন প্রযুক্তিবিদ, বিজ্ঞানী ও শিক্ষক হিসাবে আমেরিকা, জাপান, বাংলাদেশ ও সিঙ্গাপুরে। বর্তমানে তিনি কাজ করছেন ডিজিটাল হেল্থকেয়ারে যেখানে তার টিম তথ্যকে ব্যবহার করছেন বিভিন্ন স্বাস্থ্যসেবার জন্য। বিস্তারিত এর জন্য দেখুন: DrMashiur.com

Check Also

ন‍্যানোপদার্থ এর গবেষক প্রফেসর সাহাব উদ্দিন

মোহাম্মদ সাহাব উদ্দিন ১৯৭২ সালে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের রাসায়নিক প্রকৌশল বিভাগ থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন …

ফেসবুক কমেন্ট


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।